মুশফিকের ‘নাগিন… নাগিন….’

বলিউড মুভির গানটা গোটা উপমহাদেশেই তুমুল জনপ্রিয়। স্পিনার নাজমুল ইসলাম অপুর সৌজন্যে এই ‘নাগিন নৃত্য’ পৌঁছে গেছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের আঙিনায়। গতকাল সেই ‘নাগিন নৃত্য’ দেখালেন মুশফিকুর রহিম। ম্যাচ জেতানো বিধ্বংসী ইনিংস খেলা মি. ডিপেন্ডেবলের এই নাচ ইতিমধ্যেই ক্রিকেট বিশ্বে আলোচনার শীর্ষে। সাবেক ভারতীয় ক্রিকেটার এবং গত ম্যাচের ধারাভাষ্যকার সঞ্জয় মাঞ্জরেকার তো বলেই দিলেন, ‘আমি কোনো দিন ক্রিকেট মাঠে এমন উদ্‌যাপন দেখিনি।’

৩৫ বলে অপরাজিত ৭২ রান। ৫টি চার, ৪টি ছক্কা। এমন ভয়ংকর রূপে মুশফিককে সাধারণত দেখা যায় না। কিন্তু দলের একান্ত প্রয়োজনে তিনি যে কোনো ভূমিকা নিতে পারেন তা গতকাল আবারও নতুন করে প্রমাণিত হলো। দুই বছর আগে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে এই মুশফিক-রিয়াদ ‘ভায়রা ভাই’ জুটিই ৩ বলে ২ রান নিতে পারেনি। দুজনেই আউট হয়েছিলেন বড় শট খেলতে গিয়ে। গতকাল রিয়াদ আউট হওয়ার পর সেই আশংকা আবারও পেয়ে বসেছিল। কিন্তু দুই বছর আগের ভুল আর করলেন না মুশি। জিতল বাংলাদেশ। হারতে হারতে দেয়ালে পিঠ ঠেকে যাওয়ার পর রেকর্ড গড়া এক জয়।

মুশফিকের এই হঠাৎ নাগিন নৃত্যের কারণ অনুসন্ধান করছেন অনেকেই। সোশ্যাল সাইটে কেউ লিখছেন, সদ্য প্রয়াত বলিউড সুপারস্টার শ্রীদেবীর ভক্ত মুশফিক। আবার কেউ লিখছেন, মুশফিকের মত সিনিয়র ক্রিকেটারের এমন ছেলেমানুষি মানায় না। ২০১৫ সালে পাকিস্তানকে ধবলধোলাই করার পর ‘বাংলাওয়াশ’ শব্দটা ব্র্যান্ড হয়ে গিয়েছিল। এবার না হয় অপুর ‘নাগিন নৃত্য’ ব্র্যান্ডিং করলেন মুশফিক। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বাংলাদেশের রেকর্ড গড়া জয়ের ট্রেডমার্ক হয়ে রইল ‘নাগিন নৃত্য’।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *